সিলেট

সিলেটে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ৭

সিলেটে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ৭

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ   সিলেট জেলা দক্ষিণ সুরমা এলাকায় ভয়াবহ সড়ক দূর্ঘটনা হয়েছে। এনা পরিবহন বাসের ড্রাইভার, সুপারভাইজার, হেলপার সহ মোট আরোহী ছিল ১১ জন। লন্ডন এক্সপ্রেস বাসের ড্রাইভার সুপারভাইজার ও হেলপার সহ মোট আরোহী ছিল ৩১ জন। দুই বাসে সর্বমোট ছিলো ৪২ জন। এর মধ্যে নিহত ০৭জন থেকে ৩জন এনা পরিবহনের। চালক,সুপারভাইজার, হেলপার ও ০১জন লন্ডন এক্সপ্রেসের চালক, আরো ৩জনের মধ্যে লন্ডন এক্সপ্রেসের যাত্রী ১জন ও এনা পরিবহনের যাত্রী ২জন।সর্বমোট ৭জন নিহত। আহত প্রায় সকলেই কমবেশি। গুরুতর আহত ১৫জনকে ওসমানী মেডিকেল কলেজ এন্ড হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।
দিরাইয়ে বন্যার্থদের আর্থিক অনুদান প্রদান

দিরাইয়ে বন্যার্থদের আর্থিক অনুদান প্রদান

  সুনামগঞ্জের দিরাইয়ে বন্যা পরিস্থিতিতে লক্ষাধিক মানুষ পানি বন্দী হয়েছে। প্রথম ও দ্বিতীয় দফা বন্যার রেশ কাটতে না কাটতেই তৃতীয় দফা বন্যায় দিশেহারা হয়ে পড়েছেন লক্ষাধিক মানুষ। ভেঙে যাচ্ছে কাঁচা ঘর-বাড়ী ও রাস্তা-ঘাট। ফের বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে সড়ক যোগাযোগ ব্যবস্থা। ইতিমধ্যে নতুন ভাবে বন্যা কবলিত হয়ে আশ্রয় কেন্দ্রে অবস্থান নিয়েছে শতাধিক পরিবার। কুলঞ্জ ইউনিয়নে ও এর ব্যতিক্রম নয়। তবে এই ইউনিয়নে সরকারি কোন সহযোগিতা এখন পর্যন্ত আসে নি। বন্যায় ঘর বাড়ি হারা অসহায় মানুষদের পাশে দাড়াতে সুদূর ইংল্যান্ড ও ইতালি থেকে আর্থিক অনুদান প্রেরণ করেন আলহাজ্ব আব্দুল মতলিব উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাতা পরিবারের পক্ষে টংগর গ্রামের বিশিষ্ট দানশীল ও শিক্ষানুরাগী ব্যাক্তিত্ব আলহাজ্ব আব্দুল মতলিব উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাতা মরহুম আলহাজ্ব মাসুক মিয়ার ছোট ভাই দিরাই ইনভেস্টমেন্ট ফোরাম ইউ কে লিমিটেডের সম্মানিত সভাপতি,
সম্ভাব্য চেয়ারম্যান প্রার্থী আবু ছালেহের ত্রাণ ও নগদ অর্থ বিতরণ

সম্ভাব্য চেয়ারম্যান প্রার্থী আবু ছালেহের ত্রাণ ও নগদ অর্থ বিতরণ

  মোঃ ইদু খান, স্টাফ রিপোর্টারঃ সুনামগঞ্জের দিরাই উপজেলার কুলঞ্জ ইউনিয়ন পরিষদের আগামী নির্বাচনে সম্ভাব্য চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী, সমাজসেবক, যুক্তরাজ্য প্রবাসী এম আবু ছালেহ’র অর্থায়নে ইউনিয়নের বন্যার্ত মানুষের মধ্যে ত্রাণ ও নগদ অর্থ বিতরণ করা হয়েছে। আজ বৃহস্পতিবার বেলা ৩ টায় সময় স্থানীয় মিলনগঞ্জ তারাপাশা বাজারে বিতরণপুর্ব আলোচনা সভায়, আলহাজ্ব হর্রুফ খানের সভাপতিত্বে ও ইউপি সদস্য যুবলীগ নেতা জনাব চাঁন মিয়া চৌধুরীর সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন, সিলেট জজ কোর্টের এডিশনাল পি পি, আওয়ামীলীগ নেতা অ্যাডভোকেট শামসুল ইসলাম। এস এম উমেদ আলী। ছাত্রলীগ নেতা জাহাঙ্গীর চৌধুরী রিফাত। এছাড়াও আরো অনেকেই বক্তব্য দিয়েছেন। এতে উপস্থিত ছিলেন, আওয়ামী নেতা হবিবুর রহমান, আব্দুল হামিদ, সাবেক ইউপি সদস্য আব্দুর রহমান, আব্দুল জব্বার, ইসবর খান, শাহিন মিয়া, হাতিয়া গ্রামের মুরুব্বি সেলিম আহমদ লিলু, গোলাম জিলান
পরিকল্পনা মন্ত্রী এম এ মান্নান এর উন্নয়ন কল্পনাকে ও হার মানায়

পরিকল্পনা মন্ত্রী এম এ মান্নান এর উন্নয়ন কল্পনাকে ও হার মানায়

  মোঃ আনহার গাজী চৌধুরী, সুনামগঞ্জ থেকেঃ হাওর পরিবেষ্টিত প্রাকৃতিক ও দৃষ্টিনন্দন সৌন্দর্যের অপুর্ব লীলাভূমি সুনামগঞ্জ, হাওর-ভাওর, নদ-নদী, খাল-ঝিল,মৎস্য পাথর ও ধানের জন্য বিখ্যাত হলেও এই এলাকার মানুষ যুগ যুগ ধরে অনেক অবহেলিত ও সুবিধা বঞ্চিত। যোগাযোগ ব্যবস্তাবিহীন ভাবে দারিদ্র সীমানার নিছে মানবেতর জীবনযাপন করে আসছেন বেশিরভাগ মানুষই। কর্মসংস্থানের তেমন ব্যবস্তা নেই, চিকিৎসা ব্যবস্তাও ভালো নয়, সমান্য জটিল অসুখ-বিসুখ হলেই দৌড়াতে হয় সিলেটের বিভিন্ন হাসপাতাল ক্লিনিকে। কিন্তু মাননীয় পরিকল্পনা মন্ত্রী এম,এ,মান্নান এর উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ডে অনেকটাই ঘুড়ে দাড়িয়েছে সুনামগঞ্জ ৩ আসন (দক্ষিণ সুনামগঞ্জ জগন্নাথপুর) এর জনগণ। সুনামগঞ্জের বিভিন্ন জায়গার, বিভিন্ন শ্রেণীর পেশার মানুষকে জিজ্ঞেস করলে তারা বলেন, ভাটি বাংলার সিংহ পুরুষ এম এ মান্নান আমাদের সুযোগ্যে অভিভাবক ও দুর্দিনের কান্ডারী। এবং উ
সম্ভাব্য চেয়ারম্যান প্রার্থী আবু সালেহ অসহায় মানুষের পাশে

সম্ভাব্য চেয়ারম্যান প্রার্থী আবু সালেহ অসহায় মানুষের পাশে

স্টাফ রিপোর্টারঃ এই টানটাকেই হয়তো বলে মাটির মায়া। যত হাজার কিলোমিটার দূরেই অবস্থান হোক, নিজের দেশ ও গ্রাম বুকের ভেতরে নীরবে-নিভৃতে থেকেই যায়। যখনই সেই জন্মগ্রামে দুর্যোগ আসে, দুর্ভোগে পড়ে ইউনিয়নবাসী , বুকের অতল থেকে জেগে ওঠে সেই সবুজ-শ্যামল ইউনিয়ন। চোখের সামনে ভেসে ওঠে সেই সব মানুষের মুখ। বলছি সুনামগঞ্জ জেলার দিরাই উপজেলার কুলঞ্জ ইউনিয়নের হাতিয়া এ রকমই একটি গ্রাম। আর এ গ্রামেই জন্ম ও বেড়ে ওঠা জনাব আবু সালেহ। একপাশে কুশিয়ারা নদী, অন্য পাশে বিস্তীর্ণ জলরাশির হাওর। তার মধ্যখানে এই ইউনিয়ন। আর ইউনিয়নের জনগণকে ভালোবাসেন আবু সালেহ। কিন্তু জীবিকার সন্ধানে আবু সালেহকে এই ইউনিয়ন থেকে কয়েক হাজার কিলোমিটার দূরের এক দেশে নিয়ে গেছে। থাকেন দুর প্রবাসে। নিশ্চিত এক জীবন। ইউনিয়নের দিকে না তাকালেও উনার কিছু যায়-আসে না। তবু ইউনিয়নটিকে তিনি ভোলেননি। ভোলেননি ইউনিয়নের মানুষকে। দূরে থেকেও করোনাভাইরাসের এই
প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ

প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ

  গত ২৭ জুন ২০২০ইং তারিখে "জৈন্তাপুরে প্রভাবশালীর হুমকিতে বাড়ি ছাড়ল একটি পরিবার ” শিরোনামে এক সংবাদ সম্প্রতি বিভিন্ন অনলাইন নিউজ পোর্টালে প্রকাশিত হয়েছে। করোনাকালে এরকম এক হৃদয়স্পর্শী সংবাদ অনেকেরই হৃদয়কে স্পর্শ করেছে। সংবাদটি সম্পুর্ণ বানোয়াট,মিথ্যা। তাই আমি সংবাদটির তীব্র প্রতিবাদ ও নিন্দ্রা জানাচ্ছি। ঘটনাটি অনুসন্ধানের পর বিস্তারিত বিষয়টি উঠে এসেছে। ঘটনাটি ঘটেছে সিলেটের জৈন্তাপুর উপজেলার দরবস্ত ইউনিয়নের সেনগ্রামে। খোজ নিয়ে জানা যায় এক-ই গ্রামের ধর্মান্তরিত মো: আব্দুল্লাহ ( অবসরপ্রাপ্ত সাস্থ্য সহকারী) এর তিন ছেলে লন্ডনে বসবাস করেন। এদের মধ্যে আবু সাদাত মো: ডালিম স্টুডেন্ট ভিসা নিয়ে লন্ডনে যান এবং পরবর্তীতে সেখানকার এক বাঙ্গালী প্রতিবন্ধী মেয়েকে বিয়ে করে সেখানকার নাগরিকত্ব লাভ করে। এর পর থেকেই তিনি তার অপর দুই ভাই ও মা-বাবাকে সেখানে নিয়ে যাওয়ার জন্য বিভিন্নভাবে চেষ্টা করেন। কিন
করোনার সম্মুখ যোদ্ধা হিসেবে লড়াই করে যাচ্ছেন আরিফুল ইসলাম এলিন

করোনার সম্মুখ যোদ্ধা হিসেবে লড়াই করে যাচ্ছেন আরিফুল ইসলাম এলিন

স্টাফ রিপোর্টারঃ বিপদগামী এই করোনা ভাইরাসের সংক্রমণে বর্তমান পরিস্থিতিতে যখন পুরো পৃথিবী ক্ষতিগ্রস্ত,এমতাবস্থায় খালিয়াজুরী উপজেলায় করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে জনসচেতনতা সৃষ্টি মানুষকে নিরাপদ রাখতে করোনার শুরু থেকেই কঠোর পদক্ষেপ গ্রহন করেন খালিয়াজুরী উপজেলার নির্বাহী অফিসার জনাব এ এইচ এম আরিফুল ইসলাম এলিন। খালিয়াজুরী উপজেলার প্রতিটি ইউনিয়নের মানুষের হোম কোয়ারেন্টাইন এবং সামাজিক দুরত্ব বজায় রাখতে মানুষকে সচেতন ও নিরাপদ রাখতে দিনের পর দিন কঠোর পরিশ্রম করে যাচ্ছেন জনাব এ এইচ এম আরিফুল ইসলাম এলিন। খালিয়াজুরীতে করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধ অগ্রণী ভূমিকা রাখায় খালিয়াজুরী উপজেলার নির্বাহী অফিসার জনাব এ এইচ এম আরিফুল ইসলাম এলিন প্রশংসা কুড়িয়েছেন খালিয়াজুরীর সর্বসাধারন মানুষের কাছে। করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধে জেলা প্রশাসক নির্দেশনায়,পুলিশ, স্বশস্ত্র-বাহিনী, প্রতিনিধি ও নাগরিকদের সহযোগিতায় অকুতোভয়- সময়ের
বনেকের সিলেট বিভাগীয় সম্পাদক আবুল হোসেন স্ত্রীসহ করোনায় আক্রান্ত

বনেকের সিলেট বিভাগীয় সম্পাদক আবুল হোসেন স্ত্রীসহ করোনায় আক্রান্ত

পেশাগত দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন বাংলাদেশ অনলাইন সংবাদপত্র সম্পাদক পরিষদ (বনেক) এর সিলেট বিভাগীয় সম্পদক, দৈনিক সবুজ সিলেট পত্রিকার সাবেক স্টাফ রিপোর্টার ও অনলাইন নিউজ পোর্টাল ক্রাইম সিলেট’র সম্পাদক আবুল হোসেন। গত বৃহস্পতিবার (২১ মে) সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ল্যাবে নমুনা পরীক্ষার পর প্রাপ্ত ফলাফলে আবুল হোসেন ও তার স্ত্রীর করোনা পজেটিভ আসে। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন আবুল নিজেই। ‘সাংবাদিক আবুল ও তার স্ত্রী উভয়ই পেশাজীবি এবং করোনা যুদ্ধের সম্মুখ সারির যোদ্ধা।’ বর্তমানে আবুল ও তার স্ত্রী নিজ বাসায় আইসোলেশনে আছেন। বাসায় তাদের চিকিৎসা চলছে। তারা বনেক’র সকলের কাছে দোয়া চেয়েছেন। এদিকে, সিলেট সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আরিফের ব্যক্তিগত সহকারী ইমন ও সাংবাদিক আবুল হোসেনের করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার খবর পেয়ে স্বেচ্ছায় হোম কোয়ারেন্টিনে যাবার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন দৈনিক শ্যামল সিলেট
জৈন্তাপুরে মা’দের জন্য সিলেট জেলা পুলিশ সুপারের ঈদ উপহার।

জৈন্তাপুরে মা’দের জন্য সিলেট জেলা পুলিশ সুপারের ঈদ উপহার।

সিলেটের জৈন্তাপুরে জৈন্তাপুর মডেল থানা ও সিলেট জেলা পুলিশ কল্যান তহবিলের সহযোগিতায় মা দিবস উপলক্ষে সিলেট জেলার পুলিশ সুপার মোহাম্মদ ফরিদ উদ্দিন পিপিএম জৈন্তাপুরে হতদরিদ্র মাদের জন্য ঈদ উপহার প্রদান করেন। ১২ মে মঙ্গলবার বিকাল সাড়ে ৪ ঘটিকার সময় ১৫০ জন মায়ের কাছে নিজ হাতে এ উপহার তুলে দেন। ঈদ উপহারের মাজে পবিত্র ঈদের প্রয়োজনীয় খাবার সামগ্রী দেয়া হয়েছে। এ সময় উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (উত্তর) মো. মাহবুবুল আলম, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ডিএসবি) আমিনুল ইসলাম, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মিডিয়া লুৎফর রহমান, সার্কেল এএসপি, আঃ করিম, জৈন্তাপুর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ শ্যামল বণিক, অফিসার ইনচার্জ জেলা গোয়েন্দা শাখা (উত্তর) সাইফুল আলম। এ বিষয়ে পুলিশ সুপার মোহাম্মদ ফরিদ উদ্দিন পিপিএম বলেন, করোনাভাইরাস থেকে জনগণকে সুরক্ষিত রাখতে অত্যন্ত আন্তরিক হয়ে দায়িত্বপালন করছে পুলিশ। পাশাপাশি দৈনিন্দিন আয়-রোজগ

জৈন্তাপুর বিভিন্ন গ্রামে মা দিবস উপলক্ষে, ১০০ জন মা কে ঈদের খাদ্য সামগ্রী ও ইফতার বিতরণ

জৈন্তাপুর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ শ্যামল বণিক ও টীম জৈন্তাপুর এর আর্থিক সহযোগিতায় ১০০ জন মা কে ইফতার ও ঈদের জন্য সেমাই, দুধ, চিনি সহ খাদ্যদ্রব্য বিতরণ করা হয়। এসময় ওসি শ্যামল বণিক হেলিরাই গ্রামে মা দের উদ্দেশ্যে বক্তব্য রাখতে গিয়ে আবেগ আপ্লুত হয়ে পড়েন। তিনি বলেন, আমরা টীম জৈন্তাপুর সকল মা দের পাশে আছি। সকল ধরনের সাহায্য সহযোগিতার আশ্বাস দেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন, জৈন্তাপুর মডেল থানার তদন্ত ওসি ওমর ফারুক মোড়ল, এসএই শায়েদ আহমেদ, এসআই মেঘনা, সহ টীম জৈন্তাপুর ও জৈন্তাপুর উপজেলা শ্রমিক লীগের যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক হাসান মোহাম্মদ বদরুল, আকাশ, সেলিম, ফেরদৌস, কিবরিয়া, গফুর সাব্বির সহ আরো অনেকেই। জৈন্তাপুর উপজেলা শ্রমিক লীগের যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক হাসান মোহাম্মদ বদরুল বলেন, আমাদের এ উদ্যোগ পুরো রমজান মাসই চলবে।
error: Content is protected !!